ভারতের গর্ব! বিশ্বের সেরা বিজ্ঞানীদের তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে বাঙালি সন্তান অধ্যাপক কৃষ্ণদাস

0
132

আরো একবার বিশ্বদরবারে বা-জি-মা-ত করলেন বাঙালি । আমরা সাধারণত যত দিন যাচ্ছে তত উন্নত হচ্ছে।

এবং উন্নত হওয়ার পাশাপাশি আমাদের বেড়ে চলেছে চাহিদা । এবং চাহিদা থেকেই বাজারে এসেছে বিভিন্ন নামিদামি ল্যাপটপ কম্পিউটার বা অন্য কোনো ইলেকট্রনিক য-ন্ত্র-পা-তির।

কিন্তু বর্তমান প্রজন্মের অত্যাধিক পরিমাণে ব্যবহারের ফলে সেগু-লি কম সময়ে গরম হয়ে যায় । যার ফলে আমাদেরকে বা-ধ্য হয়ে কিছুক্ষনের জন্য বন্ধ রাখতে হয় সে সমস্ত য-ন্ত্র-পা-তিগুলো । এবার সেখান থেকে মিলবে রেহায় ।

বাঙালি যে থেমে থাকার পাত্র নয় তার প্রমাণ এই ঘটনা । বাঙালি যে শুধুমাত্র দেশে নিজেদের ক্ষ-ম-তা আ-বদ্ধ রেখেছে এমনটা কিন্তু নয় দেশের পাশাপাশি বিশ্ব দরবারে তুলে ধরেছে নিজেদেরকে বলাবাহুল্য নিজের জাতিকে । তার পাশাপাশি গর্বিত করেছে নিজের দেশকে । আর ঠিক সেরকমই আরো একবার ঘটল সম্প্রতি । যা রীতিমতো গর্বিত করে তুলেছে আমাদের বাঙালি জাতির সাথে সাথে আমাদের দেশ ভারত বর্ষ কেউ ।

ন্যানো ফ্লুইড নিয়ে কাজ করে বিশ্বের সেরা বিজ্ঞানীর মুকুট জয় করেছেন সম্প্রতি নদীয়া কৃষ্ণনগর গভমেন্ট কলেজের অধ্যাপক কালীদাস দাস । মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০১৯ সাল পর্যন্ত প্রকাশিত হয় ডক্টর কালিদাস দাসের ন্যানো ফ্লুইড এর ইউটিলিটি সম্পর্কিত গবেষণা। যা বিশ্বব্যাপী প্রশংসা পেয়েছে। ন্যানো ফ্লুইড এর ওপর গবেষণা করে বিশ্বের দুই নম্বর বিজ্ঞানীদের তালিকায় নিজের নাম তুলে নিয়েছেন কৃষ্ণ নগর গভর্মেন্ট কলেজের অধ্যাপক কালিদাস দাস। ২০২০ সালে প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী ১ লক্ষ ৫৯ হাজার বিজ্ঞানী স্থান পেয়েছে।

ন্যানো ফ্লুইড আসলে এক প্রকার ত-রল প-দার্থ। য-ন্ত্র-পা-তির ক্ষেত্রে উপযুক্ত কুলেন্ট তৈরিতে সাহায্য করে। বর্তমানে ইন্ডাস্ট্রিয়াল লেভেলে ব্যা-পক প্র-সার ঘটেছে যেমন গাড়ি, মোবাইল ,কম্পিউটার । সেই সমস্ত ইলেকট্রনিক য-ন্ত্র-পা-তি গুলোকে সহজে ঠান্ডা করতে এই নানোফ্লুইড একটি চি-প এর আকারে পাওয়া যাবে । যেটি কোন য-ন্ত্রের মধ্যে যদি আগে থেকে লাগানো থাকে তাহলে সেই য-ন্ত্রটি ঠান্ডা থাকবে অধিক সময় ধরে । এই ধরনের অভিনব পদ্ধতি আ-বিষ্কার করেন রীতিমতো বিশ্বদরবারে এখন কালিদাস দাস ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here